একদিনেই ঘুরে আসুন হাজারিখিল অভয়ারণ্যে

হাজারিখিল অভয়ারণ্য সম্পর্কে অনেকেই হয়তো জানেন না। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের হাজারিখিল বন্য প্রাণীর এক অভয়ারণ্য।

জানলে অবাক হবেন, চট্টগ্রাম এমনকি ফটিকছড়ির মানুষরাও এখনো ঠিকমতো চেনেন না এই অভয়ারণ্য। তবে সেখানে গেলে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন। সেখানে গেলে রোমাঞ্চকর অনুভূতি পাবেন পর্যটকরা। একদম শান্ত ও নিরিবিলি জায়গা এটি!

সীতাকুণ্ড শহরের একেবারেই নিকটে অবস্থিত হাজারিখিল। ২০১০ সালের ৬ এপ্রিল ২ হাজার ৯০৮ হেক্টরের এই স্থানকে বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়। সেই থেকে স্থানটি ‘হাজারিখিল বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য’ নামে পরিচিতি লাভ করে। সেখানে জনসমাগম অনেকটাই কম।

শান্ত, নিরিবিলি, পরিষ্কার পরিচ্ছন একটা পরিবেশের মধ্যে বনে ক্যাম্পিং করতে যারা চান তাদের জন্য সেরা এক জায়গা হলো এই হাজারিখিল অভয়ারণ্য। ইউএসএআইডি ও বন বিভাগ দ্বারা পরিচালিত হয় এই বন! ক্যাম্পিংয়ের জন্যে যা যা লাগে সবকিছু সেখানেই পাবেন।

হাজারিখিল অভয়ারণ্য সম্পর্কে অনেকেই হয়তো জানেন না। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের হাজারিখিল বন্য প্রাণীর এক অভয়ারণ্য।

জানলে অবাক হবেন, চট্টগ্রাম এমনকি ফটিকছড়ির মানুষরাও এখনো ঠিকমতো চেনেন না এই অভয়ারণ্য। তবে সেখানে গেলে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন। সেখানে গেলে রোমাঞ্চকর অনুভূতি পাবেন পর্যটকরা। একদম শান্ত ও নিরিবিলি জায়গা এটি!

সীতাকুণ্ড শহরের একেবারেই নিকটে অবস্থিত হাজারিখিল। ২০১০ সালের ৬ এপ্রিল ২ হাজার ৯০৮ হেক্টরের এই স্থানকে বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়। সেই থেকে স্থানটি ‘হাজারিখিল বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য’ নামে পরিচিতি লাভ করে। সেখানে জনসমাগম অনেকটাই কম।

শান্ত, নিরিবিলি, পরিষ্কার পরিচ্ছন একটা পরিবেশের মধ্যে বনে ক্যাম্পিং করতে যারা চান তাদের জন্য সেরা এক জায়গা হলো এই হাজারিখিল অভয়ারণ্য। ইউএসএআইডি ও বন বিভাগ দ্বারা পরিচালিত হয় এই বন! ক্যাম্পিংয়ের জন্যে যা যা লাগে সবকিছু সেখানেই পাবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.